Ticker

6/recent/ticker-posts

কাঁচা আমলকী খাওয়ার গুণাগুণ ও উপকারিতা







আমলকী টক আর তেতো স্বাদের ভিটামিন সি সমৃদ্ধ একটি ফল। আমরা সবাই কম বেশি পছন্দ করি আমলকি। এর স্বাদ প্রথমে কষটে লাগলেও খাওয়া শেষে মুখে মিষ্টি ভাব আসে। মুখে রুচি বাড়ে আমলকী খেলে। লিভার, জন্ডিস, পেটের পীড়া, সর্দি, কাশি ও রক্তহীনতার জন্যও খুবই উপকারী।



বিজ্ঞানীদের মতে, আমলকিতে পেয়ারার চেয়ে ১০ গুণ ও কাগজি লেবুর চেয়ে ৩ গুণ বেশি ভিটামিন ‘সি’ রয়েছে। এছাড়া আমলকিতে কমলার চেয়ে ১৫ থেকে ২০ গুণ বেশি, আপেলের চেয়ে ১২০ গুণ বেশি, আমের চেয়ে ২৪ গুণ এবং কলার চেয়ে ৬০ গুণ বেশি ভিটামিন ‘সি’ রয়েছে। একজন বয়স্ক লোকের প্রতিদিন ৩০ মিলিগ্রাম ভিটামিন ‘সি’ দরকার। তাই প্রতিদিন দুইটা করে আমলকী খেলেই হয়ে যাবে।



আমলকী খাওয়ার উপকারিতা 



চুল পরা -

 কাঁচা আমলকী বেটে গোসল করার তিন ঘন্টা আগে মাথায় মাখলে চুল পরা বন্ধ হবে, সেই সাথে চুলের গোড়া শক্ত হবে। তাছাড়া অল্প বয়সে চুল পাকবেনা। আবার অনেকেই আমলকী সাথে নারকেল তৈল ব্যবহার করেন। এতে ভালো ঘুম হয় মাথা ঠান্ডা থাকে।


ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বে -

প্রতিদিন সকালে আমলকির রসের সঙ্গে মধু মিশে খাওয়া যেতে পারে। এতে ত্বকের কালো দাগ দূর হবে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বে।


চোখ ওঠা -

কাঁচা আমলকীর রস দুই ফোঁটা করে সারা দিনে দুইবার চোখে দিলে চোখ ওঠা ভালো হয়। তবে তিন দিন দেওয়ার দরকার। আর রস করতে হবে পাথরের তৈরি পরিষ্কার থলে অথবা স্টিলের হামানদিস্তায়।


মাথা ধরা -

 আমলকী বেটে তার সঙ্গে সাদা চন্দন ঘষে ভালোভাবে মেখে সারা কপালে দিলে রোগী অবশ্যই ভালো হবে।


কোষ্ঠকাঠিন্য -

আমলকী, বহেড়া, হরতুকী এই তিনটি উপাদান প্রতিটা চার গ্রাম করে, আগের দিন সন্ধ্যায় ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে রেখে দিন। তার পরের দিন সকালে খালি পেটে খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়ে যাবে। এছাড়াও বায়ু, পিত্ত ও কফ এই তিনটি দোষ ও দূর হবে।


 রক্তশূন্যতায় -

রক্তশূন্যতা দূরীকরণে বেশ ভালো কাজ করে আমলকী। রক্ত তৈরিতে সাহায্য করে। লোহিত রক্ত কণিকার সংখ্যা বাড়ে।


যৌন সমস্যায় -

 অনেকেই যৌনতা সংক্রান্ত নানান সমস্যায় ভোগেন। সেই সমস্যা দূর করতে পারে আমলকী। যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে।


রোগ প্রতিরোধ -

আমলকীর থেকে প্রচুর পরিমাণ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা লাভ করা যায়। এক গ্লাস দুধ বা পানির মধ্যে আমলকি গুঁড়ো ও সামান্য চিনি মিশিয়ে দিনে দু’বার খেতে পারেন। এ্যাসিডেটের সমস্যা কম রাখতে সাহায্য করবে। 


 ডায়াবেটিস -

 ব্লাড সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে রেখে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। কোলেস্টেরল লেভেলেও কম রাখতে যথেষ্ট সাহায্য করে।


রুচি ও স্বাদ বাড়ায় -

আমলকির টক ও তেঁতো মুখে রুচি ও স্বাদ বাড়ায়। রুচি বৃদ্ধি ও খিদে বাড়ানোর জন্য আমলকির গুঁড়ার সঙ্গে সামান্য মধু ও মাখন মিশিয়ে খাওয়ার আগে খেতে পারেন।


ফ্যাট ঝরাতে সাহায্য -

আমলকি শরীর ঠাণ্ডা রাখে, শরীরের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে, পেশি মজবুত করে। শরীরের অপ্রয়োজনীয় ফ্যাট ঝরাতে সাহায্য করে আমলকি।


 


Post a Comment

0 Comments