Ticker

6/recent/ticker-posts

কাঁচা ছোলার উপকারিতা ও গুনাগুন

Koko Healthy Tip

কাঁচা ছোলার নানা রকম গুণাগুন রয়েছে। আমরা কম বেশি সবাই জানি। প্রতি ১০০ গ্রাম খাদ্যপোযোগী কাঁচা  ছোলায় আমিষ প্রায় ১৮ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট প্রায় ৬৫ গ্রাম, ফ্যাট মাত্র ৫ গ্রাম, ২০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ‘এ’ প্রায় ১৯২ মাইক্রোগ্রাম এবং প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন বি-১ ও বি-২ আছে কাঁচা ছোলাই। তা ছাড়াও কাঁচা ছোলায় আছে নানা রকম ভিটামিন, খনিজ লবণ, ম্যাগনেশিয়াম ও ফসফরাস রয়েছে।  উচ্চমাত্রার প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার কাঁচা  ছোলা। কাঁচা, সেদ্ধ বা তরকারি রান্না করেও খাওয়া যায়। কাঁচা ছোলার কিছু গুণাগুণ তুলে ধরা হল।



ডাল - কাঁচা ছোলা একটি পুষ্টিকর সুস্বাদু ডাল। মলিবেডনাম ও ম্যাঙ্গানিজ এর চমৎকার উৎস কাঁচা ছোলা। প্রচুর মাত্রায় ফলেট এবং খাদ্য আঁশ আছে কাঁচা ছোলাই। তার সাথে আর আছে আমিষ,কপার, ফসফরাস ও আয়রণ।



যৌনশক্তি - কাঁচা ছোলা হারানো যৌবন ফিরে আনতে সাহায্য করে থাকে। যে সকল পুরুষ ভাইদের যৌন শক্তি কমে গেছে। তারা নিয়মিত কাঁচা ছোলা খেলে আপনার যৌন শক্তি দ্বিগুণ বৃদ্ধি পাবে। এক মুঠো কাঁচা ছোলা সারা রাত ভিজিয়ে রেখে দিবেন। সকালে ছোলা থেকে খোসা ছাড়িয়ে, খালি পেটে এক মুঠো কাঁচা ছোলা চিবিয়ে খেয়ে নিবেন। নিয়মিত টানা এক সাপ্তাহে খেলে দেখবেন আপনার যৌন শক্তি আগের থেকে দ্বিগুণ বাড়িয়ে যাবে।



ব্লাড প্রেসার - কাঁচা ছোলার উপকারিতা শেষ নাই। গবেষণায় দেখা গেছে নিয়মিত কাঁচা  ছোলা খাওয়ার অভ্যাস করলে দেহের পটাশিয়ামের মাত্রা দিরে দিরে বাড়তে শুরু করে। এই খনিজটির পরিমাণ যত বাড়ে, সোডিয়ামের মাত্রা ততো নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। তার ফলে ধীরে ধীরে ব্লাড প্রসোর নিয়ন্ত্রণে চলে আসে।



ক্যান্সার - কাঁচা ছোলা খেলে মরণ ঘাতি রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। বেশ কিছু গবেশনায় প্রমান করেন যে,বেশি পরিমান ফলিক এসিড খাবারের সাথে গ্রহন করলে নারীরা কোলন ক্যান্সার এবং রেক্টাল ক্যান্সার এর ঝুকি থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবে। কাঁচা ছোলাই রয়েছ প্রচুর পরিমাণ ফলিক এসিড। তাই নিয়মিত কাঁচা ছোলা খাওয়া অভ্যাস করুন।



হজম ক্ষমতা - কাঁচা ছোলা হজম শক্তি বৃদ্ধি করে। অল্প কিছু খেলেই কি আপনার পেটে সম্যাসা হয় কিংবা বদ হজম হয়। চিন্তার কোন কারণ নাই। নিয়মিত কাঁচা ছোলা খান দেখবেন আপনার হজম শক্তি দ্বিগুণ বেড়ে গেছে। কারণ কাঁচা ছোলাই রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা শুধু হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটায় না, তার সাথে ডায়ারিয়া মতো রোগের হাত থেকেও রক্ষা করে। তাই নিয়মিত কাঁচা ছোলা খাওয়া অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।



রোগ প্রতিরোধ করে - কাঁচা ছোলার গুণের অভাব নাই। এক মুঠো কাঁচা ছোলা ভিজিয়ে সারা রাত রেখে দিন। সকালে কাঁচা ছোলার সাথে এক টুকরো আদা ভালো করে মিশিয়ে খেলে শরীরে আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিকের চাহিদা পূরণ হয়। আমিষ মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান বানায় এবং অ্যান্টিবায়োটিক যে কোনো অসুখের জন্য প্রতিরোধ গড়ে তোলতে সাহায্য করে। তাই আমরা নিয়মিত কাঁচা ছোলা খাওয়ার অভ্যাস কর। 









Post a Comment

1 Comments